আমরা সবাই প্রজা

আমরা সবাই প্রজা আমাদের এই রাজার রাজত্বে
নইলো মোরা রাজার নৌকায় চড়বো কি শর্তে
আমরা সবাই প্রজা!

আমরা মিষ্টি কথায় ভুলি, আমরা দুষ্ট কথায় চলি
আমরা তাদের মাথায় তুলে সুখের নৃত্য করি
আমরা সবাই প্রজা!

আমরা তো বোকা খাই প্রতি পদে ধোঁকা
উন্নয়নের জোয়ারে ডুবে মরে আছি খাঁ খাঁ
আমরা সবাই প্রজা!

আছে দরবেশ বাবা, আছে চাটুকারের থাবা
জননী বাংলা নিঃসন্তান, মোরা ধর্ষিত জনতা!
আমরা সবাই প্রজা!

-_-

আমি কিভাবে শিখব? পর্ব: ইউটিউব

ধরুন আপনি নতুন JavaScript কিংবা React কিংবা আমাদের সবার প্রিয় WordPress শিখছেন। এই তিনটিই কিন্তু বেশ পুরোনো। অনেক দিন ধরে মার্কেটে থাকায় এবং জনপ্রিয়তার কারণে এসবের উপর অনেক বই, আর্টিকেল লেখা হয়েছে এবং অনেক ভিডিও টিউটোরিয়ালও বানানো হয়েছে। এরকম জনপ্রিয় এবং অনেক দিন ধরে চলা কোন একটা টুলস কিংবা টেকনলজি সম্পর্কে কিভাবে আপনি খুব দ্রুত আইডিয়া বা ধারণা নিবেন কিংবা সাধারণ বিষয়গুলি শিখে ফেলবেন?

আপনি কি ফেসবুকে সেই টুলস বা টেকনলজি সম্পর্কিত গ্রুপে প্রশ্ন করবেন, নাকি আপনার পরিচিত কাউকে গিয়ে জিজ্ঞেস করবেন, নাকি বসে বসে অপেক্ষা করবেন কেউ এসে বিষয়গুলি আপনার মাথায় ঠুকিয়ে দিয়ে যাবে? আপনি কি করবেন?

আমার সাজেশন হবে আপনি ইউটিউবে সেই টেকনলজি বা টুলস সম্পর্কিত ভিডিও দেখুন। আরও ভালো হয়আপনার আগ্রহের বিষয় সম্পর্কিত ভালো কিছু ইউটিউব চ্যানেল যুক্ত হলে। এরপর টপাটপ কিছু ভিডিও দেখে ফেলুন এবং দ্রুত আইডিয়া নিন! আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে এতো কিছু থাকতে কেন ইউটিউবে ভিডিও দেখতে বলল! উত্তর হলো, ভিডিও গুলিতে সাধারণত অনেক ভিজুয়াল বিষয় থাকে, অনেক লাইভ কোডিং লাইভ রেজাল্ট দেখার সুযোগ থাকে। আর আমাদের মস্তিস্ক ভিজুয়াল বিষয়গুলি অনেক দ্রুত ক্যাপচার করতে পারে এবং এর ফলে আমরা দ্রুত বুঝতে ও শিখতে পারি।

এই কৌশলটি শুধুমাত্র কোন বিষয়ে দ্রুত ধারনা নেবার জন্য এবং আমি এভাবেই শিখি 🙂

আমি কিভাবে শিখব? পর্ব: সোর্সকোড

ধরুন, আপনি একই ধরনের দুটি ফাংশন নিয়ে কাজ করছেন অথবা কোথাও দেখলেন। যেমন: the_title() এবং get_the_title() কিংবা esc_attr__() এবং esc_attr_e() । এখন আপনার যদি এ নিয়ে পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকে তবে স্বাভাবিকভাবেই মনে প্রশ্ন আসতে পারে, আচ্ছা এ দুটির পার্থক্য কি? তখন এ উত্তর জানার জন্য আপনি কি করবেন?

আপনি কি WordPressians এ গিয়ে প্রশ্ন করবেন, নাকি Stack Overflow তে গিয়ে প্রশ্ন করবেন, নাকি এক্সপার্ট কাউকে ইনবক্স করবেন, নাকি এক্সপার্ট কাউকে সামনা-সামনি জিজ্ঞেস করবেন! আপনি কি করবেন?

আমার সাজেশন হলো আপনি সোর্সকোড দেখুন। সোর্সে দেখুন ফাংশন দুটির ডেফিনেশনে কি লেখা আছে। তারপর সেখানে পার্থক্য খুঁজুন। যদি প্রথমবার বুঝতে কষ্ট হয় তবে পুনরায় দেখুন, যদি তাও বুঝতে সমস্যা হয় তবে আবার দেখুন। সময় নিয়ে বুঝে বুঝে কোড পড়ুন এবং বোঝার চেষ্টা করুন। এরপরও যদি বুঝতে সমস্যা হয় তখন প্রশ্ন করুন যে, আমি এরকম এরকম পার্থক্য দেখলাম কিন্তু এই এই বিষয়গুলি বুঝতে পারিনি। আপনি নিশ্চিত থাকুন, পূর্বে আপনি যে ধরনের সহায়তা পেতেন তার চেয়েও আরো বেশি আন্তরিক সহায়তা পাবেন। কারণ এতে আপনার জানার আগ্রহ, ক্ষুধা, প্যাশন প্রকাশ পাবে।

আপনি যদি এই চর্চা অব্যহত রাখেন, আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি আপনি অনেক দ্রুত শিখতে পারবেন এবং পুরো সিস্টেম কিভাবে কাজ করছে এবং কোথায় কখন কি ঘটছে সবকিছু বুঝতে পারবেন। এবং নিশ্চিতভাবে এই চর্চা আপনাকে একজন ভালো মানের ডেভেলপার হতে অনেক সহায়তা করবে।

সোর্সকোড দ্রুত নেভিগেট করার জন্য এবং যে কোন ফাংশন বা ক্লাস থেকে তার ডেফিনেশনে যাবার জন্য একটি ভালো মানের কোড এডিটর অথবা IDE (Integrated Development Environment) অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। আপনি Sublime Text, VS Code, PHPStrom এ ধরনের এডিটর/IDE ব্যবহার করতে পারেন।

আমি এভাবেই শিখি 🙂

How I found a bug in WooCommerce

Code Is Poetry

I love poems and sometimes I dare to write some to express my feelings that I cannot describe to anyone, actually I write to express pain and anger. But today I’m not gonna write any poem and you won’t get any chance to experience how worst my feelings are. Today I’m gonna tell you exactly how I found a bug in WooCommerce, which no one noticed before me. Isn’t it interesting and exciting?

Code Is Poetry, I hope you heard this before. This famous phrase is coined by WordPress and these 3 words extremely inspired me that I started to like WordPress very much and it became the only source of my livings. Honestly, WordPress is not just a tool for me; I have an emotional relationship with it. Let’s keep this story secret for another day.

I first heard about WordPress in 2011 and since then I always read books, articles, and blogs about it. Reading about WordPress became habitual. But only books, articles and blogs weren’t enough compared to my thirsty anymore. So I started to read codes. I read functions definition, classes definition or whatever feels interesting. I read because I wanna figure out WHY. I read because I wanna know things deeply. I read because I get the feeling of reading a poem. I believe every single line of code has a strong relationship with emotion, a logical emotion!

Recently started working on a WooCommerce project. So usually I spend most of my working time with WooCommerce and at short break I read WooCommerce core codes. Like other days I opened a file in my favorite IDE and started to read from the top. After reading few lines I got surprised! What, why it’s counting $all_notices it is supposed to count $notices. A Few seconds later I realized that I discovered a bug. Yahoo, I found a bug in WooCommerce!

So, this the story of my bug hunting. I hope you’ll start to read code and experience how code becomes poetry. Trust me, you’ll learn a lot by reading codes.

*Pardon me for my not so bad English!

Happy reading, happy hunting 🙂

বই রিভিউ – কেমন করে মানুষ চিনবেন

If you love something, set it free.
If it comes back, it is yours
If it doesn’t, it never was

আত্নউন্নয়ন, সাইকোলজি, সায়েন্সফিকশন, ধর্মীয় এবং সায়েন্সের বইগুলি পড়তে আমার বেশ ভালো লাগে। সম্প্রতি ডঃ পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর লেখা কেমন করে মানুষ চিনবেন বইটি পড়লাম। এক কথায় দারুন একটি বই। চমৎকার এই বইটি থেকে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু জানতে পেরেছি। যা জেনেছি তার সবকিছু লিখে শেয়ার করতে পারবো না, আবার কিছু শেয়ার না করেও থাকতে পারবো না। তাই ভাবলাম সংক্ষেপে কিছু শেয়ার করি। যা কিছুটা রিভিউ টাইপের কিন্তু পুরোপুরি রিভিউ নয়।

আগে দর্শনধারী পরে গুণবিচারি কিংবা First impression is the last impression কথাগুলি আমাদের সমাজে ভীষণ প্রচলিত। আমরা বেশিরভাগ মানুষই কথাগুলি ভীষণভাবে বিশ্বাস করি এবং মেনে চলি। ফলশ্রুতিতে আমরা যেমন সর্বদাই চেষ্টা করি কারো সাথে প্রথম দেখায় একটি দারুন ইম্প্রেশন দেয়ার, বিশেষ করে মানুষটি যদি গুরুত্বপূর্ণ কেউ হয়। আর একারণেই মানুষ চেনার ক্ষেত্রে মূলত এটি একটি বড় ফাঁদ!

আমরা যেমন চেষ্টা করি অন্যেকে অসাধারণ একটি ইম্প্রেশন দেয়ার, তেমনি অন্যরাও সমানভাবে কিংবা আমাদের থেকে বেশিই চেষ্টা করে স্বরণীয় রাখার মত, মনে মধ্যে রেখাপাত করার মত একটি ইম্প্রেশন দেয়ার। আর এই চেষ্টার ভীতরেই আমরা আমাদের প্রকৃত চেহারাকে অনেকাংশে অথবা ক্ষেত্র কিংবা ব্যক্তি ভেদে পুরোটাই লুকিয়ে ফেলি মুখোশের আড়ালে। আর তাই মানুষ চেনার প্রথম রুলসটি হল – প্রথম দেখায় কাউকে বিচার করতে নেই!

বইটির শেষে একটি রুলস আছে যা মূলত কষ্টি পাথর দিয়ে স্বর্ণ পরীক্ষার মতন। আমার কাছে এই পরীক্ষাটি দারুণ লেগেছে যা লেখার শুরুতেই উল্লেখ করেছি। তাই বলতেই হয়, The last impression was amazing! 😉

— ধন্যবাদ 🙂